মোঃ মঈন উদ্দীন চিশতী, দিনাজপুরঃ
নানান সংকটের মধ্যেও সুখবর দিয়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। আগামী জানুয়ারির শেষের দিকে অথবা ফেব্রুয়ারির প্রথম দিকেই জেলায় আসছে করোনার ভ্যাকসিন। নতুন করে ফ্রিজিং ব্যবস্থা করা না হলেও দিনাজপুর জেলায় তাৎক্ষণিকভাবে প্রায় দেড় লাখ ডোজ ভ্যাকসিন সংরক্ষণ করার মতো ব্যবস্থা রয়েছে।
এ বিষয়টি জানিয়েছেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল কুদ্দুস। তিনি এ বিষয়ে বলেন, এখন পর্যন্ত প্রাথমিকভাবে গুরুত্ব দিয়ে করোনার টিকা দেওয়ার জন্য যাদের তালিকা করা হয়েছে তাদের সংখ্যা প্রায় দেড় লাখ। এর মধ্যে জ্যেষ্ঠ নাগরিক, স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারী, প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী, পুলিশের কর্মকর্তা-সদস্য, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন জনের সম্ভাব্য তালিকা করা হয়েছে। এই সংখ্যাটিও প্রায় লাখ দেড়েক।
তিনি আরো বলেন, দিনাজপুর জেলায় একটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, একটি জেনারেল হাসপাতাল, ১৩টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ স্বাস্থ্য বিভাগের বিভিন্ন ভ্যাকসিন রাখার জন্য যেসব ফ্রিজ ও কক্ষ রয়েছে সেগুলোতে কমপক্ষে দেড় লাখ ডোজ নতুন ভ্যাকসিন রাখা যাবে। ফলে আপাতত করোনার ভ্যাকসিন সংরক্ষণ নিয়ে আমাদের দুশ্চিন্তা করতে হবে না। আর ভ্যাকসিন আসার সাথে সাথেই আমরা নির্দেশনা মোতাবেক তা বিতরণের ব্যবস্থা করবো। এছাড়া করোনার ভ্যাকসিন প্রয়োগের জন্য জেলার প্রায় সাড়ে ৩শ’র মতো স্বাস্থ্য সহকারী প্রস্তুত রয়েছেন। ভ্যাকসিন প্রাপ্তির পরপরই প্রয়োগ, কলা-কৌশল ও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার ব্যাপারে একদিনের জেলা ও উপজেলা অবহিতকরণ সভা করেই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা যাবে বলে জানান তিনি।