রাজু আহমেদ, নাটোরঃ

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি বলেছেন, ছোটবেলা থেকে খেলায় পড়ে থাকতাম, খেলাধুলার মাধ্যমে মানসিক বিকাশ ঘটে।দুর্দম বহুমূখী প্রতিষ্ঠানের উদ্যোক্তা হিসেবে খেলাধুলার টুর্নামেন্ট আয়োজন করতাম। প্রত্যকটি বাবা,মার উচিত সন্তানের মানসিক বিকাশে সহায়তা করা। খেলার মাধ্যমে লড়াকু মেজাজ গড়ে উঠে, যা শিক্ষার ক্ষেত্রে এগিয়ে যাবার প্রেরণা যোগায়। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে খেলাধুলার কোনো বিকল্প নাই।


পলক বলেন, ৭০ শতাংশ তরুন, সাড়ে ৪ কোটি ছাত্র ছাত্রী কে প্রযুক্তি শিক্ষায় শিক্ষিত করতে সরকার কাজ করছে। প্রগতিশীল, অসাম্প্রদায়িক চেতনা এবং সুস্থ মনে খেলাধুলার মাধ্যমে বিকাশ ঘটায়।

তিনি আরো বলেন, ছোটবেলায় সিংড়ার মাঠে খেলাধুলা ছিলো না। ফুটবল পাবার জন্য ধর্না ধরতো, নেতাদের কাছে খেলাধুলার সামগ্রী পাইনি। মাঠে খেলোয়ারদের চাঁদায় ফুটবল কিনতে হয়েছে। এ কষ্ট আমাকে প্রেরণা দিতো। এজন্য সিংড়ার মাঠে এখন খেলা হয়, ফুটবল কিংবা খেলার সামগ্রী দিতে ধর্না দিতে হয় না। কলম ক্রিকেট একাডেমীর সাফল্য কামনা করেন তিনি। আধুনিক একাডেমি হিসেবে কলম ক্রিকেট একাডেমি এগিয়ে যাবে।


প্রতিমন্ত্রী শুক্রবার বিকেলে কলম ক্রিকেট একাডেমি উদ্বোধন শেষে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন।

কলম ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ শফিকুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার খালেদ মাসুদ পাইলট, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম সামিরুল ইসলাম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা রুহুল আমিন, উপ-কর কমিশনার গোলাম কিবরিয়া, কলম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মঈনুল হক চুনুসহ জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, সাংবাদিক ও সূধিজন।

এর আগে প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক কলম ইউনিয়নের শীতার্থ ১২ শ পরিবারকে শীতবস্ত্র বিতরন এবং ক্রিকেট একাডেমিকে প্রয়োজনীয় সামগ্রী প্রদান করেন।