রাজাপুর প্রতিনিধিঃ

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে ইতিমধ্যেই তোড়জোড় শুরু হয়েছে ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার পথে প্রান্তরে,অলিতে
গলিতে।আসন্ন ইউপি নির্বাচন একটু ভিন্ন রকম।এর আগের নির্বাচন গুলোতে ইউপি সদস্য হিসেবে প্রার্থীদের তালিকায় শিক্ষিত যুবকদের দেখা মিলতনা বললেই চলে।কিন্তুু এবার নির্বাচনকে ঘিরে ভিন্ন রকমের প্রচার প্রচারনা কিংবা আলোচনায় দেখা যাচ্ছে শিক্ষিত যুবকদেরও।নিজ নিজ ওয়ার্ডকে নিয়ে এইসব যুবকদের ইচ্ছাও ভিন্নধর্মী। আসন্ন ইউপি নির্বাচন নিয়ে কথা হয় এমনি একজন শিক্ষিত যুবকের সাথে।মো:মাছুম বিল্লাহ বাপ্পি মিয়া রাজাপুর উপজেলার ৪নং গালুয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য পদে প্রার্থীতা করতে চায় এক বুক স্বপ্ন নিয়ে।তার সাথে আলপকালে তিনি বলেন,বর্তমানে যুব সমাজের অধিকাংশই মাদকাসক্ত।আমি
একজন যুবক হয়ে আমার ওয়ার্ডকে মাদক মুক্ত করতে চাই।বাল্য বিবাহের মত অভিশাপ থেকে মুক্ত করতে চাই ২ নং ওয়াডর্কে, গ্রামকে আধুনকি শহরে রুপান্তরিত করতে চাই।গ্রামের রাস্তাঘাটের উন্নয়ন করতে চাই।গরীব দুঃখী মানুষের পাশে থাকতে
চাই।আমি এই স্পপ্ন গুলোকে বাস্তবায়ন করতে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে ৪ নং গালুয়া ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য পদে নির্বাচন করতে আগ্রহী। সচেতন এলাকাবাসীর দাবী,আমরা পত্র পত্রিকার পাতা খুললে প্রায়ই দেখি দেশের ভিবিন্ন এলাকায় ইউপি সদস্যরা গরীবের চাল চুরি করে আটক হইছে,বয়স্ক ভাতা,বিধবা বাতা’র কার্ডে নাম দেয়ার কথা বলে অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে।কেউবা
আবার শালিশ মিমাংসার নামে অসহায় নারীদের ধর্ষণ করেছে।আবার অনেক অনেক ইউপি সদস্যও রয়েছে যারা নিজেদের নামটাও লিখতে পারেনা শিক্ষাগত যোগ্যতা না থাকায়।তাই আমরা চাই বাপ্পী মিয়ার মত শিক্ষিত যুবকরা নির্বাচিত হয়ে জনপ্রতিনিধির দ্বায়িত্ব পালক করুক এবং নিজ নিজ ওয়ার্ডকে সকল প্রকার দূর্নিতি ও কুসংস্কার থেকে মুক্ত করে আধুনিক শহরে রুপান্তরিত করুক।