আত্রাইয়ে ভুট্টার বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

প্রকাশিত: ১১:২৫ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ৯, ২০২১

রুহুল আমিন,আত্রাই নওগাঁঃ

নওগাঁর আত্রাইয়ে প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও লক্ষ্যমাত্রার অধিক জমিতে ভুট্টার চাষ করা হয়েছে। উপজেলার কালিকাপুর, সাহাগোলা, আহসানগঞ্জ, মনিয়ারী, ভোঁপাড়া, পাঁচুপুর, বিশা ও হাটকালুপাড়া ইউনিয়নের ফসলী মাঠ নদী বিধৌত হওয়ায় এবং পলিযুক্ত মাটি খুব উর্বর। তাই এসব এলাকার চরাঞ্চলে ভুট্টার অধিক ফলন হয়ে থাকে।
সরেজমিনে ৮টি ইউনিয়নের মাঠগুলো ঘুরে ভুট্টা চাষের এই দৃশ্য দেখা গেছে। যেখানেই চোখ যায় শুধু বিস্তীর্ণ মাঠজুড়ে ভুট্টা ক্ষেত দেখা যায়। কম খরচে অধিক মুনাফা অর্জনের ফলে দিন দিন ভুট্টা চাষের জন্য কৃষকরা ব্যাপকভাবে আগ্রহী হয়ে উঠেছে।
উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের মদনডাঙ্গা গ্রামের কৃষক আকবর আলী বলেন, গত বছর ভুট্টা চাষ করে বাম্পার ফলন হয়েছে এবং এর দামও ভালো পেয়েছি। ভুট্টা চাষে খরচ কম, লাভ বেশি। এতে আমি বেশ লাভবান হয়েছি। তাই আমি এ বছর ২ বিঘা জমিতে ভুট্টার আবাদ করেছি। আসাকরি এ বছরও ভুট্টার ভালো ফলন হবে।

একই গ্রামের কৃষক আবু বলেন, ভুট্টা চাষের জন্য খরচ কম এবং লাভজনক হওয়ায় আমি এ বছর দেড় বিঘা জমিতে ভুট্টার আবাদ করেছি। আবহাওয়া ভালো থাকলে গত বছরের ন্যায় চলতি বছরেও ভুট্টার বেশি ফলন হবে বলে আমি মনে করি।
উপজেলার সাহাগোলা ইউনিয়নের ফুলবাড়ি গ্রামের কৃষক আক্কাছ আলী বলেন, গত বছর আমি ভুট্টা চাষ করে বিঘা প্রতি ৩০ মণ হারে ফলন হয়েছে। ৫শত টাকা মণ দরে ভুট্টা বিক্রি করেছি। ভুট্টা চাষে খরচ কম হওয়ায় আমি খুব লাভবান হয়েছি। এ বছর আমি আরো বেশি জমিতে ভুট্টার আবাদ করব।
আত্রাই উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরে ভুট্টা চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য্য করা হয়েছে ৫ হাজার ১শত ৫৫ হেক্টর জমি। গত বছর ভুট্টা চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য্য করা হয়েছিল ৫ হাজার ১শত ৫০ হেক্টর জমি। এ লক্ষ্যমাত্রার অধিক জমিতে ভুট্টার আবাদ করা হয়েছিল।

কৃষিবিদদের মতে উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চলে চলতি বছরে ব্যাপকভাবে ভুট্টার চাষ হবে। অল্পদিনে ও কম খরচে ভুট্টাচাষ হওয়ায় এখানকার কৃষকেরা ভুট্টাচাষে ব্যাপকভাবে ঝুঁকে পড়েছে। কম পূঁজি, ঝুঁকিহীন, সেচ ও সার প্রয়োগের ব্যবস্থা থাকায় কৃষকরা ভুট্টা চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। এছাড়া সরকার কৃষি প্রণোদনা স্বরূপ কৃষকদের মাঝে উন্নত জাতের বীজ ও সার বিনামূল্যে বিতরণ করেছেন।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কেএম কাউছার বলেন, চলতি বছরে আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ভুট্টার ভালো ফলন হবে বলে আমি আশা করি। এছাড়া মাঠ পর্যায়ে উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তাগণ কৃষকদেরকে সার্বক্ষণিক পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন।